Report for Act 1.8 Meet with DG Health_01-02-17

সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী বাস্তবায়নে সকল জেলার সিভিল সার্জনকে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করার জন্য চিঠি প্রেরণ করবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

গত ১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক এ. এইচ. এম এনায়েত হোসেন এবং এনসিডিসির লাইন ডাইরেক্টর ডা. মো: ফারুক আহমেদ ভূঁইয়া’র সঙ্গে টোব্যাকো কন্ট্রোল এন্ড রিসার্চ সেল (টিসিআরসি) ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট এর একটি প্রতিনিধিদল স্বাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাৎকালে টিসিআরসির প্রতিনিধিদল বলেন, তামাক নিয়ন্ত্রণের কার্যকর পন্থা সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবানী। যেদেশের সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণীর পরিধি যত বেশি, সেদেশে তামাক নিয়ন্ত্রণ তত বেশি কার্যকর| বাংলাদেশে গত ১৯ মার্চ ২০১৬ সাল থেকে সকল তামাকজাত দ্রব্যের মোড়কে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবানী আসার কথা থাকলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মানা হচ্ছেনা এ বিধি। তাই সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবানী বাস্তবায়নে স্বাস্খ্য অধিদপ্তরের সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন বলে তারা জানান। এ সময় তারা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এনসিডিসির লাইন ডাইরেক্টর ডা. মো: ফারুক আহমেদ ভূঁইয়ার কাছে প্রতিটি জেলার সিভিল সার্জন ও স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার বরাবর চিঠি প্রেরণের মাধ্যমে নিয়মিত বাজার মনিটরিং এর মাধ্যম্যে জেলা ভিত্তিক সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবানীর সঠিক বাস্তবায়নের দাবী জানান।

ডা. মো: ফারুক আহমদে ভূঁইয়া বলনে, তামাক নিয়ন্ত্রণ অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণে অন্যতম ভুমিকা রাখবে। তাই আমরা তমিকি নিয়ন্ত্রণে সব সময় আপনাদেও পাশে আছি। আমরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এনসিডি প্রোগ্রাম থেকে এ সংক্রান্ত চঠিি চঠিি আমরা

সকল জলোয় প্ররেণ করবো যেস তারা নিয়মিত বাজার মনিটরিং এর মাধ্যমে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণী বাস্তবায়নে ভ’মিকা রাখতে পারে এবং কোথাও আইন অনুযায়ী সতর্কবানী না আসলে তা টাস্কফোর্স কমিটির

মাধ্যমে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে। এ সময় তিনি আরো বলেন, ধূমপান ও তামাক সবেন অসংক্রামক রোগরে প্রধান কারণ হসিাবে চহ্নিতি। তাই আমরা অসংক্রামক রোগ নয়িন্ত্রণ র্কমসূচতিে তামাক নয়িন্ত্রণকে গুরুত্বসহ অর্ন্তভূক্ত করেছি।

অতিরিক্ত মহাপরচিালক অধ্যাপক এ. এইচ. এম এনায়তে হোসনে বলনে, দশেে অসংক্রামক রোগ বাড়ছে। আর অসংক্রামক রোগের অন্যতম কারণ তামাক সেবণ ও গ্রহণ। এছাড়া পরোক্ষ্য ধূমপানও সমান ক্ষতি করছে। কিন্তু সাধারণ মানুষ এ ক্ষতির কথা উপলব্ধি করতে পারছেনা। কিন্তু ছবিসহ স্বাস্থ্য সতর্কবানী মানুষের মাঝে তামাক গ্রহণের ভয়াবহতা তুলে ধরতে সক্ষম। তাই তামাক নিয়ন্ত্রেণে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবাণীর গুরুত্ব অপরিসীম। এক্ষেত্রে সবাইকে এগি

য়ে আসান আহ্বান জানান তিনি।তনিি সরকারি ও বসেরকারি প্রতষ্ঠিানরে মধ্যে সমন্বয়রে উপর গুরুত্বারোপ করনে।

টোব্যাকো কন্ট্রোল রিসার্স সেল এর প্রকল্প র্কমর্কতা ফারহানা জামান লজিা ও মো. মহউিদ্দনি ছাড়াও বাংলাদশে তামাক বরিোধী জোটরে পক্ষে এসময় উপস্থতি ছলিনে ডাব্লউিববিি ট্রাস্ট-এর প্রোগ্রাম অফসিার সয়ৈদা অনন্যা রহমান, প্রকল্প র্কমর্কতা শারমনি আক্তার, ফাহমদিা ইসলাম, সহকারী প্রকল্প র্কমর্কতা আবু রায়হান এবং এইড ফাউন্ডশেন এর প্রকল্প র্কমর্কতা তৌহদি উদ দৌলা রজো ও সজল কুমার মৈত্র।